Gig Worker কাকে বলে? কীভাবে Gig Worker হিসাবে কাজ পাওয়া যায়?

  (5/5, 2 votes)

গতানুগতিক ফুলটাইম কাজের পরিবর্তে কন্ট্রাক্ট বা চুক্তিভিত্তিক প্রজেক্ট এর কাজের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সার বা স্বাধীন কর্মী নিয়োগের মাধ্যমে কাজের যে ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে সেই অর্থনীতিকেই গিগ ইকোনোমি বলা হয়।

যেমন: Fiverr, Upwork, Uber, Foodpanda, ইত্যাদি গিগ ইকোনোমিভিত্তিক ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান। 

Gig Worker কাকে বলে? 

গিগ ইকোনোমি ভিত্তিক কাজের জন্য নিয়োগকৃত ফ্রিল্যান্সার বা স্বাধীন খন্ডকালীন, চুক্তিভিত্তিক ছোট ছোট কাজে নিয়োজিত কর্মীদেরকেই বলা হয় gig workers বা গিগ কর্মী।

যেমন - Fiverr এর ফ্রিল্যান্সার, Uber এর গাড়িচালক, Foodpanda, Hungrynaki’ র মতো ফুড ডেলিভারির কাজ করা কর্মীরা। 

কাজের বৈশিষ্ট্য:

এধরণের কাজের ক্ষেত্রে কাজ করার সময় বা সীমার ধরা-বাঁধা নিয়ম নেই বলে, গিগ-কর্মীরা নিজেদের পছন্দ ও চাহিদা মোতাবেক কাজ করতে পারেন। একই সাথে ফ্রিল্যান্সার বা স্বাধীন খন্ডকালীন ছোট ছোট কাজের সাথে জড়িত থাকার ফলে তারা এধরণের কাজ একাধিক প্রতিষ্ঠানের হয়ে করার সুযোগকে কাজে লাগাতে পারেন। তারা সাধারণত কাজের ভিত্তিতে অর্থ উপার্জন করে থাকেন। অর্থাৎ, যত বেশি কাজ তত বেশি আয়।   

কীভাবে এ ধরণের কাজ পাওয়া যায়:

বিভিন্ন ধরণের ফ্রিল্যান্সিং জব লিস্টিং সাইটের মাধ্যমে Gig worker -রা খুব সহজেই এধরনের চুক্তিভিত্তিক ছোট ছোট কাজ পেয়ে থাকেন। বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে Fiverr, Upwork, Freelancer, Flexjobs, Uber, Ubereats, Foodpanda, Behance, People per hour, Guru প্রভৃতি গিগধর্মী কাজ পাবার জন্য অন্যতম জনপ্রিয় জায়গা।

Gig Worker হিসাবে কাজ করার সুবিধা:

নতুন এই কর্মক্ষেত্রের ফলে ইচ্ছুক দক্ষ মানুষের মাঝে কিছু সুবিধা দেখা দিয়েছে।

যেমন - 

  • স্বাধীনভাবে কাজ ও আয় করার সুযোগ।
  • সুপরিবর্তনশীল এবং নমনীয় কর্মক্ষেত্র।
  • চাহিদা অনুযায়ী স্বল্পমেয়াদী কাজ।
  • গতানুগতিক ৯টা-৫টা কাজের পরিবর্তে স্বাধীনভাবে কাজ করে স্বাবলম্বী হবার সুযোগ।
  • নিজ স্থান থেকে কাজের সুযোগ।
  • ইন্টারনেটের সুবাদে যেকোনো স্থান থেকে বিশ্বের যেকোনো প্রান্তের কাজ করার সুযোগ।
  • অ্যাপ ভিত্তিক ব্যবসা সম্প্রসারণের সুযোগ।
  • সময়কে সঠিক ব্যবহারের মাধ্যমে নিজ দক্ষতায় আয়ের সুযোগ।
  • অফিসের স্থানবাবদ খরচ কমানোর মাধ্যমে অন্যান্য ক্ষেত্রে বিনিয়োগের সুযোগ।
  • স্থানভেদে দক্ষকর্মী নিয়োগের সুযোগ।  

অসুবিধা:

গিগ কাজের ক্ষেত্রে সুবিধার মতো কিছু অসুবিধাও রয়েছে।

যেমন-

  • স্থায়ী চাকুরির অনিশ্চয়তা।
  • সবৈতনিক ছুটির নিয়ম নেই।
  • কাজ ঠিকভাবে নিয়োগদাতাকে বুঝিয়ে দেয়া এবং পারিশ্রমিকে নানা ঝামেলার সম্মুখীন হবার আশংকা।
  • কাজের অর্ডার না পেলে উপার্জন না করতে পারা।
  • যত কাজ তত টাকা ভিত্তিক কাজের কারণে, কাজের প্রভাবে নানা ধরণের শারীরিক জটিলতা সৃষ্টি হওয়ার ঝুঁকি।

 

Published By
About us  | Privacy Policy | Terms of Service
© 2022 grammarbd.com All Rights Reserved.