রিপিটার কি?

  (5/5, 1 vote)

টেলিযোগাযোগ প্রযুক্তির একধরনের বৈদ্যুতিক যন্ত্র হল Repeater বা রিপিটার। যা মূলত একটি সিগন্যালকে এমপ্লিফাই করার কাজে ব্যবহৃত হয়ে থাকে, অর্থাৎ এটি একটি সিগন্যালকে গ্রহণ করে, আরো শক্তিশালী সিগন্যাল হিসেবে রূপান্তর করে, পুনরায় প্রেরণ করার কাজ করে থাকে।

প্রধানত নেটওয়ার্ক কাভারেজ বৃদ্ধি করার জন্য এই যন্ত্রটি ব্যবহৃত হয়ে থাকে। এছাড়াও যেখানে সিগন্যাল দূর্বল, সেখানে রিপিটার ব্যবহারের মাধ্যমে কাভারেজ বৃদ্ধির পাশাপাশি সিগন্যালকে শক্তিশালী করা সম্ভব।

এই প্রযুক্তিটি টেলিযোগাযোগের প্রায় সব ধরনের মাধ্যম অর্থাৎ টেলিফোন, রেডিও, টেলিভিশন, ইন্টারনেট সহ সকল ক্ষেত্রেই ব্যবহৃত হয়ে থাকে। বর্তমানে ওয়াইফাই নেটয়ার্ক এর কাভারেজ বৃদ্ধির জন্য এই যন্ত্রটি গ্রাহক পর্যায়ে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।

তবে এই একই প্রযুক্তিটি ভিন্নরূপে ব্যবহারের মাধ্যমেই রেডিও (রেডিও রিপিটার প্রযুক্তি), টেলিভিশন (ব্রডকাস্ট রিলে স্টেশন) সম্প্রচারকার্য সম্পন্ন হয়ে আসছে, এমনকি অপটিক্যাল ফাইবার (অপ্টিক্যাল রিপিটার) এর মাধ্যমে ইন্টারনেট সেবা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রেও রিপিটারের ব্যবহার হয়ে থাকে।

তথ্য বহনকারী সিগন্যাল যখন একটি যোগাযোগ চ্যানেলের মধ্য দিয়ে যায়, তখন এর শক্তি হ্রাস পেতে থাকে, অর্থাৎ সেই সংকেত দূরত্ব এবং পরিবহনের সময়ের সাথে সাথে ক্রমাগত দূর্বল হতে থাকে। এধরনের দূর্বল সিগন্যাল বেশি দূর যেতে পারে না, ফলে এর কাভারেজ ও কমে যায়।

 

যেমনঃ একটি রাউটার ইন্টারনেটকে রেডিও ওয়েভ আকারে তারবিহীনভাবে ছড়িয়ে দেয়। এখন সেই ওয়াইফাই ব্যবহারকারীর সঙ্গে রাউটারের দূরত্ব যত বেশি হবে ওয়াইফাই সিগন্যাল তত দূর্বল হবে, একইভাবে রাউটার এবং ব্যবহারকারীর মাঝে বিদ্যমান নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতার জন্যও সিগন্যাল দূর্বল হয়ে যায়।

এমতাবস্থায় একটি রিপিটার ব্যবহার করা হলে, সেই দূর্বল সিগন্যালটিকে রিপিটার গ্রহণ করে আরো শক্তিশালী সিগন্যালে রুপান্তরিত করে পুনরায় প্রেরণ করে। যার ফলে ব্যবহারকারী ঐ একই দূরত্বে কিংবা একই প্রতিবন্ধকতা ব্যবহারকারী এবং রাউটারের মাঝে থাকা স্বত্ত্বেও আগের চেয়ে শক্তিশালী সিগন্যাল পাবেন। এমনকি রাউটারের নেটওয়ার্ক কাভারেজ আগের চেয়ে বৃদ্ধি পাবার ফলে পূর্বের তুলনায় রাউটার থেকে আরো দূর পর্যন্ত এই সিগন্যাল পরিবহনে সক্ষম হবে।  

 

Published By
About us  | Privacy Policy | Terms of Service
© 2021 grammarbd.com All Rights Reserved.